করোনা ভাইরাস রোগের লক্ষণ, চিকিৎসা ও সুরক্ষার উপায়

 স্বাস্থ্য কথা      

গোটা বিশ্বে প্রায় প্রতিটি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস (Coronavirus)। ভাইরাসটির আরেক নাম ২০১৯ বা নভেল করোনাভাইরাস। করোনাভাইরাসের অনেক রকম প্রজাতি আছে, কিন্তু এর মধ্যে মাত্র ছয়টি প্রজাতি মানুষের দেহে সংক্রমিত হতে পারে।

রোগের লক্ষণ কী:
* রেসপিরেটরি লক্ষণ ছাড়াও জ্বর, কাশি, শ্বাস প্রশ্বাসের সমস্যাই মূলত প্রধান লক্ষণ।
* এটি ফুসফুসে আক্রমণ করে।
* সাধারণত শুষ্ক কাশি ও জ্বরের মাধ্যমেই শুরু হয় উপসর্গ, পরে শ্বাস প্রশ্বাসে সমস্যা দেখা দেয়।

** সাধারণত রোগের উপসর্গগুলো প্রকাশ পেতে গড়ে পাঁচ দিন সময় নেয়।

•• আপনি কিভাবে বুঝবেন যে আপনি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত?
১. গলা চুলকাবে
২. গলা শুকিয়ে আসবে
৩. শুকনা কাশি হবে
৪. তীব্র জ্বর
৫. শ্বাস ছোট হয়ে আসবে
৬. গন্ধ ও স্বাদের অনুভুতি চলে যাবে

করোনাভাইরাস থেকে বেঁচে থাকার কিছু উপায়:

করোনা ভাইরাসের দেহের pH এর মান 5.5 থেকে 8.5
এর চেয়ে বেশি pH level এর খাবার গ্রহনের মাধ্যমে আমরা এর রাসায়নিক গঠন ভেংগে দিতে পারি।

5.5 থেকে 8.5 এর থেকে বেশি pH level এর কিছু খাবার হল :
* লেবু - 9.9 pH
* পাতিলেবু - 8.2 pH
*এভোকাডো - 15.6 pH
* রসুন- 13.2 pH
* আম- 8.7pH
* ছোট কমলা - 8.5pH
* আনারস- 12.7 pH
* ডালিয়া ফুল - 22.7 pH
* কমলালেবু - 9.2 pH

এছাড়াও ব্যক্তিগত কিছু অভ্যাস আমাদের এই ভাইরাস থেকে বেঁচে থাকতে সাহায্য করবে:

১. প্রতিদিন যথাসম্ভব ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবার, ফল খান।
২. ভিটামিন ই সমৃদ্ধ খাবার, ফল খান (ট্যাবলেট পাওয়া যায়)।
৩. প্রতিদিন সকাল ১১টার মধ্যে ১৫ থেকে ২০ মিনিট রোদ পোহান।
৪. প্রতিদিন কমপক্ষে একটি করে ডিম খান।
৫. প্রতিদিন কমপক্ষে ৭-৮ ঘন্টা ঘুম।
৬. প্রতিদিন কমপক্ষে ১.৫ লিটার পানি পান এবং প্রতি বেলায় গরম খাবার খাওয়ার অভ্যাস করুণ।